20 Jun

জিপিএল (GPL) লাইসেন্স ডিমিস্টিফাইড।

জিপিএল (GPL) লাইসেন্স ডিমিস্টিফাইড। আমরা যারা ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কাজ করি এবং ওপেন সোর্স প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করি, তাদের কাছে জিপিএল টার্মটা অনেক পরিচিত। ওপেন সোর্স মুভমেন্টের পথিকৃত রিচার্ড স্টলম্যানের তৈরী করা জিএনইউ প্রজেক্ট(রিকার্সিভ অ্যাক্রোনিম – জিএনইউ মানে ‘জিএনইউ ইস নট ইউনিক্স’) এবং সেটা থেকেই জিপিএল (জিএনইউ জেনারেল পাবলিক লাইসেন্স) এর উৎপত্তি। বিশ্বব্যাপী ওপেন সোর্স প্রজেক্ট গুলো ডিস্ট্রিবিউট করার জন্য জিপিএল, এমআইটি, এলজিপিএল, বিএসডি, অ্যাপাচি এগুলো হল সবচেয়ে জনপ্রিয় লাইসেন্স, এগুলোর আন্ডারেই মোটামুটি সবাই তাদের ওপেন সোর্স প্রজেক্ট ডিসট্রিবিউট করে।
.
আজকের এই স্ট্যাটাস জিপিএল নিয়ে কচকচ করার জন্য না, বরং একটা পার্টিকুলার ইস্যু অ্যাড্রেস করার জন্য দেয়া। জিপিএল লাইসেন্সের প্রধান শর্ত হল এই লাইসেন্স দিয়ে কোন প্রজেক্ট রিলিজ করলে সেটার সোর্স কোড অবশ্যই ওপেন থাকতে হবে, পাবলিকলি অ্যাকসেসেবল থাকতে হবে ফ্রি অব কস্ট। জিপিএল লাইসেন্সের অধীনে রিলিজ দেয়া কোন কম্পোনেন্ট বা লাইব্রেরী যদি আপনি আপনার সফটওয়্যারে ব্যবহার করতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে আপনার প্রজেক্টের সোর্স কোড ওপেন রাখতে হবে। এবং মজার বিষয় হল আপনি আপনার জিপিএল প্রজেক্ট বা সফটওয়্যার বিক্রী করতে পারবেন।

.
এখন মূল কথায় আসি, যেটার কারনে এই পোস্টটা লেখা। আগেই বলেছি, জিপিএল লাইসেন্স করা কোন প্রজেক্ট কমপ্লিটলি ওপেন সোর্স, এটা যে কেউ যে কোন পারপাসে ব্যবহার করতে পারবে। আপনি ফ্রি অব কস্ট রিলিজ দিলেও বা টাকা দিয়ে সেল করলেও, আপনার প্রজেক্ট জিপিএল লাইসেন্সড হলে আপনার কাছ থেকে কিনে এটা যে কেউ “লিগালি” ফ্রি ডিসট্রিবিউট করতে পারে। ঠিকই পড়েছেন, দে ক্যান ডিসট্রিবিউট ইট ফর ফ্রি। এটা তারা লিগালি করতে পারে, এখানে বেআইনির কিছু নাই, জিপিএল তাদেরকে এই রাইটস দিয়েছে। আপনি যখনই আপনার প্রজেক্টের জিপিএল লাইসেন্সের অধীনে রিলিজ দিলেন, সাথে সাথে আপনি সবাইকে পারমিশন দিয়ে দিলেন আপনার সফটওয়্যার/লাইব্রেরী নিয়ে যা ইচ্ছা করার। শুধু একটা জিনিস করা যাবে না, সেটা হল কেউ আপনার প্রজেক্ট নিয়ে আপনার নাম কেটে দিয়ে নিজের নাম দিয়ে চালিয়ে দিতে পারবে না। অর্থাৎ, আপনি যে অরিজিনাল অথর সেটা কোনভাবেই রিমুভ করা যাবে না। তাহলে সেটা লাইসেন্সের ভায়োলেশন হবে।
.
এখন আবার জিপিএল (GPL) লাইসেন্স ডিমিস্টিফাইড  মূল পয়েন্টে আসেন, ধরেন আপনি আপনার জিপিএল প্রজেক্ট ৫০ ডলার দিয়ে সেল করতেছেন। এখজন আপনার কাছ থেকে সেটা কিনল। যেহেতু এটা জিপিএল লাইসেন্সড, সুতরাং প্রজেক্টের সোর্স কোড সে পেয়ে গেল। এবং জিপিএল এর টার্ম অনুযায়ী এখন সে সেটা ফ্রি সবাইকে দিতে পারে, এমনকি দশ ডলারেও সেল করতে পারে চাইলে, কিংবা পাঁচ কি একশ ডলারে – এবং সেটা করতে পারে আপনাকে কোন প্রফিট বা শেয়ার না দিয়েই। পুরো জিনিসটাই আইনগতভাবে সিদ্ধ, যতক্ষন না সে নিজেকে এই সফটওয়ারের অথর বলতেছে।
.
সুতরাং এইযে এত প্লাগইন সাইট দেখেন, যারা অন্যের জিপিএলে রিলিজ দেয়া প্লাগইন ফ্রি দিয়ে দিচ্ছে বা কিছু টাকার বিনিময়ে সেল করতেছে, এখানে বেআইনি কিছু নাই। আপনি তাদের কাছ থেকে কিনতে পারেন, এবং এটা নিয়ে “লো” ফিল করার কোন কারন নাই। এটা জিপিএল আপনাকে রাইটস দিয়েছে, সো এটা আপনি করতে পারেন। এখানে মোরাল বা এথিকাল বিষয়টা নিয়ে আমি কথা বলতেছি না, আমি বলতেছি আপনি লিগালি কি করতে পারেন। করবেন কি করবেন না সেটা আপনার ইচ্ছা, বাট আপনি চাইলেই করতে পারেন এবং এখানে কেউ আপনাকে চোর বলতে পারবে না, কেউ আপনার নামে মামলা করতে আসবে না, এটা পাইরেসী না। কেউ যদি আপনাকে এই কাজের জন্য “পাইরেট” বা “চোর” বলে, একদম কান বরাবর বন-চটকানা লাগিয়ে দিবেন
.
তাহলে যারা অরিজিনাল অথর তাদের কাছ থেকে কেন কিনবেন? ভালো প্রশ্ন – কিনবেন কারন তাদের কাছ থেকে সাপোর্ট পাবেন। ফ্রি ফ্রি বা অল্প টাকা দিয়ে অন্যের কাছ থেকে কালেক্ট করলে তো আর এই সাপোর্টটা পাবেন না। সুতরাং আপনারা যখন তাদের কাছ থেকে কিনবেন, মূলত তাদের কাজের পরিশ্রমের চেয়ে আপনি সাপোর্টের জন্য পে করছেন এটা মাথায় রাখতে হবে।
.
আশাকরি পুরো বিষয়টা এখন আপনার মাথায় ক্লিয়ার – তাও সামারি বলে দেই, কেউ যদি অন্যের জিপিএল প্রজেক্ট ফ্রি ডিসট্রিবিউট করে বা টাকার বিনিময়ে সেল করে তাহলে সেটা আইনগতভাবে একদম ওকে। কেউ কোন কথা শুনাতে আসলে আপনি বরং দুই তিন কথা শুনিয়ে দিবেন, কিংবা কথার সাথে একটা দুইটা বন-চটকানা ফ্রি দিয়ে দিবেন। এখানে অরিজিনাল অথরের ঘ্যান ঘ্যান বা ভ্যান ভ্যান করার কোন স্কোপ নাই।
.
তবে দিনের শেষে কোনটা রাইট/রং সেটা পরের বিষয় – আসল কথা হল এখানে এনফোর্সিং অথরিটি নাই। আমি যতটুকু জানি বা বুঝি, ওয়ার্ডপ্রেস অর্গে থিমের বা প্লাগইনের যে অংশটুকু আছে সেটা ১০০% জিপিএল না হলে প্রবলেম। এরপর আপনার সাইট থেকে আপনি যেটা সেল করতেছেন, সেটা লাইসেন্স ভায়োলেট করে ডুয়াল লাইসেন্সিং স্কিমে সেল করলেও বলার কিছু নাই। আর সেই অংশটুকু জিপিএল না হলে অন্য কেউ সেটা লিগালি ফ্রি ডিসট্রিবিউট করতে পারবে না। আবার আপনি সেটা জিপিএলের অধীনে সেল না করলে কেউ সেটা নিয়ে আপনার নামে মামলাও করতে পারবে বলে মনে হয় না। আমরা জানি যে জিপিএলের ডেরিভেটিভ জিপিএল হতে হবে। কিন্তু আপনি যদি সেটা না করেন, কেউ আপনাকে জোর করে করাতে পারবে না বা রিয়াল ওয়ার্ল্ডে এটার জন্য আপনাকে অ্যাকিউজও করতে পারবে না।
.
জিপিএল (GPL) লাইসেন্স ডিমিস্টিফাইড ব্যাপারে কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্টসে জানাবেন।
.
ওপেন সোর্স ফিলোসফি বড়ই মজার একটা জিনিস। জিপিএল (GPL) লাইসেন্স ডিমিস্টিফাইড।
.
.
ক্রেডিট: হাসিন হায়দার, ৬ই জুন ২০২০

Leave a reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.