25 Apr

হোস্টিং এর ব্যাপারে বেস্ট না খুঁজে কোয়ালিটি খুঁজুন তাহলেই হবে।

বেস্ট না খুঁজে কোয়ালিটি খুঁজুন তাহলেই হবে। আপনাকে হোস্টিং কেনার আগে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যে হোস্টিং কোম্পানি থেকে হোস্টিং নিতে চাচ্ছেন তাদের কাছ থেকে এই প্রশ্নগুলোর উত্তর খোঁজার চেষ্টা করতে পারেন। যেমন:-

১। তাদের সার্ভার কেমন?
২। ডাটা সেন্টার কোথায়?‍
৩। তাদের আপটাইম কেমন?
৪। তাদের আফটার সেলস সাপোর্ট কেমন?
৫। তাদের সার্ভার রেসপন্স কেমন?
৬। তাদের সিকিউরিটি কেমন?
৭। তাদের প্রাইভেসি পলিসি কেমন?
৮। মানি ব্যাক গ্যরান্টি থাকছে কিনা।
ইত্যাদি।

১ এবং ২.
আপনি যদি এশিয়ার ভিতরে ব্যবসার উদ্দেশ্যে হোস্টিং কিনতে চান তাহলে ডাটা সেন্টার সিঙ্গাপুর/ইন্ডিয়া নেওয়ার চেষ্টা করুন। এশিয়ার বাইরে বা ওয়ার্ল্ডওয়াইডের জন্য ইউএসএ। ইউরোপের জন্য জার্মানি/ইউকে বাছাই করতে পারেন।

৩.
তাদের আপ-টাইম কেমন? আপ-টাইম একটা হোস্টিংয়ের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপ-টাইম কি? সহজ কথায় আপনার সাইট ঠিক কতক্ষণ অনলাইনে থাকবে এবং ঠিক কত সময়ের জন্য ডাউন/অফলাইনে যাবে। ৯৯% যে হোস্টিং কোম্পানির আপটাইম সেটা বেস্ট।

৪.
আপনি হোস্টিং কিনছেন। কেনার পরে কোন একটা সমস্যাতে পড়লেন। সাপোর্টে যোগাযোগ করলেন। দেখা গেলো আপনি তাদের মেসেজ করলেন রিপ্লে দিচ্ছে না সময় মতো। অথবা কল করেই যাচ্ছেন করেই যাচ্ছেন রিসিভ হচ্ছে না। অথবা দেখলেন কল রিসিভ করছে, মেসেজের/টিকেটের রিপ্লে দিচ্ছে ঠিকই কিন্তু সমস্যা সমাধানে দীর্ঘসময় নিচ্ছে। অথবা আপনার সমস্যা তারা বুঝতেই পারছে না। এক্ষেত্রে আফটার সেলস সাপোর্ট খুব দরকারি।

৫.
সার্ভার রেসপন্স বলতে সহজ কথায় আপনার সাইট কত দ্রুত লোড নিচ্ছে। যত কম সার্ভার রেসপন্স টাইম পাবেন সার্ভারের কোয়ালিটি তত ভালো হবে।

৬.
আপনি সাইট হোস্ট করছেন কয়েকদিন পরে সাইট হ্যাক হয়ে গেলো! দেখা গেলো যে কোম্পানি থেকে হোস্টিং কিনছেন তাদের সার্ভার সিকিউর না। এক্ষেত্রে অবশ্যই সাইটের সিকিউরিটি আপনার উপরেও নির্ভর করে। তবে অনেক হোস্টিং কোম্পানির সার্ভার সিকিউর থাকে। অনেকে হোস্টিং এর সাথে এক্সট্রা সিকিউরিটি টুলস প্রোভাইড করে।

৭.
আপনি সাইট হোস্ট করছেন। আপনার সাইটের ডাটা তারা চুরি করলো। আপনার সাইটের ফাইলে অনাকাঙ্খিতভাবে হোস্টিং কোম্পানির লোকেরা প্রবেশ করছে। অথবা আপনার সাইটের/আপনার ডাটা সেল করছে। সেক্ষেত্রে কি করবেন?

৮.
দেখা গেলো তাদের সার্ভিস আপনার মন মতো হলো না চাচ্ছেন না তাদের কাছে আর সাইট রাখতে। কিন্তু এদিকে আপনি ১ বছরের জন্য বা তার বেশি সময়ের জন্য হোস্টিংয়ের টাকা পরিশোধ করেছেন। দেখা গেলো ১৫ দিন যেতেই অনেক সমস্যা ফেস করছেন যেমন- সার্ভার আপটাইম ভালো না, সাপোর্ট ভালো না, সার্ভার রেসপন্স ভালো না, সিকিউরিটি ভালো না তখন তাদের কাছে টাকা ফেরত চাইলেন। তারা টাকা ফেরত দিবে কিনা দিলেও তাদের পলিসি কেমন সেটা হোস্টিং কেনার আগে দেখে কিনুন। অনেকে ৩০ দিনের মানিব্যাক গ্যারান্টি দিয়ে থাকে।

আনলিমিটিডে বা খুবই সস্তাতে যখন কোন হোস্টিং কিনতে যাবেন স্বভাবতই আপনি ঠকবেন।

মনে রাখবেন আনলিমিটেড বলে কিছু নাই। তাই কমদামে আনলিমিটেডের অফার পেলে আগে ১০বার ভাববেন। দুনিয়াতে আনলিমিটেড বলে কিছুই নাই। কৌশলে আপনাকে আমি ২ জিবি দিয়েও আনলিমিটেড দেখাতে পারি আবার ১০০ জিবি দিয়েও আনলিমিটেড দেখাতে পারি। তাই আনলিমিটেডে না গিয়ে সেই হোস্টিং কোম্পানি থেকে হোস্টিং কিনুন যে কোম্পানি আপনাকে নির্দিষ্ট করে হিসেব দিচ্ছে। তাদের সার্ভারে কোন টেকনোলজি ব্যবহার করছে, সাথে কি কি অফার করছে সেসব দেখে কিনুন।

আপনি সবগুলো যাচাই করার সুযোগ আমার কাছে পাবেন। ৭ এবং ৩০ দিনের মানি ব্যাক গ্যারান্টি আছে। মান্থলি বেসিসে আপনি একটা প্যাকেজ কিনে পরখ করতে পারেন।

Courtesy: Facebook Comments Section from Someone.

 

Leave a reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.